বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই ২০২০, ০৪:৪৯ পূর্বাহ্ন

বরিসের ‘মৃত্যু’ ঘোষণার প্রস্তুতি নিয়েছিলেন চিকিৎসকেরা!

অনলাইন ডেস্ক: ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন করোনায় আক্রান্ত হয়ে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) যাওয়ার পর তার বাঁচার আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন চিকিৎসকেরা। এমনকি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর মৃত্যু ঘোষণা দেওয়ারও প্রস্তুতি নিয়েছিলেন তারা।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য সানকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সাক্ষাৎকারে ৫৫ বছর বয়সী বরিস জনসন বলেন, ‘অস্বীকার করব না এটা কঠিন স্মৃতি। চিকিৎসকেরা আমার মৃত্যু ঘোষণা দেওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছিলেন।’

আইসিইউতে তাকে বাঁচিয়ে রাখতে চিকিৎসকেরা ‘লিটার-লিটার’ অক্সিজেন দেন বলে জানান সদ্য বাবা হওয়া বরিস। তিনি বলেন, ‘আমার শ্বাসনালী দিয়ে টিউব প্রবেশ করানোর সময় বাঁচার সম্ভাবনা ফিফটি-ফিফটি চলে আসে।’

হাসপাতাল থেকে মুক্তি পেয়ে গত বুধবার ছেলে সন্তানের মুখ দেখেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। তিনি জানান, চিকিৎসকদের উৎসর্গ করে ছেলের নাম রেখেছেন উইলফ্রেড ল্যারি নিকোলাস জনসন।

ছেলের নামকরণের ব্যাখ্যা দিয়ে বরিস বলেন, ‘ল্যারির নাম তার বাবার দাদা উইলফ্রেড এবং দাদি লরির নামানুসারে রাখা হয়েছে। এ ছাড়া ওর বাবা যে দুমাস করোনাভাইরাসে অসুস্থ ছিলেন, তাকে যে দুজন চিকিৎসক প্রাণে বাঁচিয়েছেন তাদের সম্মানে নিকোলাস শব্দটি বেছে নেওয়া হয়েছে। সেই চিকিৎসকদের নাম হলো ডা. নিক প্রাইস এবং ডা. নিক হার্ট।’

উল্লেখ্য, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস থেকে সেরে ওঠার পর গত ২৭ এপ্রিল থেকে নিজ অফিসে কাজ শুরু করেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। এর আগে গত ৫ এপ্রিল তার শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে সেন্ট্রাল লন্ডনের সেন্ট টমাস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে ৬ থেকে ৯ এপ্রিল তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়।


মুজিব বর্ষ

মুজিববর্ষ
© ২০১৩ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত সময়ের কন্ঠ লিঃ
কারিগরি সহায়তায় N Host BD